প্রবাসে আইন সহায়তায় বাংলাদেশের আইনজীবী শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ রাজু

প্রবাসে আইন সহায়তায় বাংলাদেশের আইনজীবী শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ রাজু

প্রবাসীর গল্প প্রশাসনিক তথ্য

অভিবাসন আইন বিশেষজ্ঞ হিসাবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যে প্রবাসে আইন সহায়তায় বাংলাদেশের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ একটি খুব জনপ্রিয় নাম। আজ আমরা অ্যাডভোকেট শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদের ক্যারিয়ারের বিভিন্ন দিক তুলে ধরব।

শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদের জন্মঃ

ক্যারিয়ারে সফল, এই আইনজীবী পদ্মা নদী এবং আড়িয়াল খাঁ নদীর সীমান্তবর্তী জেলা মাদারীপুরে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদের ছাত্র রাজনীতিঃ

কলেজে থাকাকালীন শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ ছাত্র রাজনীতি এবং বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে যুক্ত ছিলেন। ছাত্র রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়েছে। ছাত্র অবস্থায় তিনি সামনে থেকে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন অধিকার আদায়ের জন্য আন্দোলন করছেন।

আইনজীবী হিসাবে শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদঃ

একজন সফল আন্তর্জাতিক অভিবাসন আইন বিশেষজ্ঞ শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ নিজেকে একজন আইনজীবী হিসাবে পরিচয় দিতে পছন্দ করেন।

একজন রাজনীতিবিদ-কলামিস্ট হিসাবে শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদঃ

প্রবাসে আইন সহায়তায় বাংলাদেশের আইনজীবী শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ একবার ছাত্র রাজনীতির পথ অনুসরণ করে সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। এরপর তিনি আর রাজনীতিতে আসেন নাই। এছাড়া তিনি একজন সফল কলামিস্ট। তিনি নিয়মিত বিভিন্ন দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক মাসিক পত্রিকার জন্য লেখালেখি করেন। তাঁর লেখায় মানবাধিকারের বিভিন্ন বিষয় উঠে এসেছে। এছাড়া বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে নিয়মিত টক শো-তে অংশগ্রহন করেন।

প্রবাসে আইনজীবি শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদঃ

এক সাক্ষাত্কারে অভিবাসন আইন বিশেষজ্ঞ ও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ প্রবাসীদের দুর্দশার বর্ণনা দেন। এই সমস্যাটিকে মাথায় রেখে তিনি বিভিন্ন সময়ে প্রবাসীদের আইনী সহায়তা দিচ্ছেন।

অ্যাডভোকেট শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, প্রবাসে থাকা প্রতিটি বিদেশীর আইন মেনে চলতে হবে এবং নিজ নিজ দেশের মানুষকে সম্মান করা উচিত। তিনি বলেন, আইন সবার জন্য সমান। অনেক প্রবাসী এখনও আইনের ব্যবহারিক প্রয়োগ জানে না। আর জানেন না বলেই অনেক বাংলাদেশী ধাপে ধাপে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন। অ্যাডভোকেট শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেন তারা অসহায়ভাবে দিন কাটাচ্ছে ও বিভিন্ন প্রতারণার শিকার হচ্ছেন।

অভিবাসন আইনের বিশেষজ্ঞ শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ জানান, তিনি বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ করে অভিবাসন প্রতিষ্ঠানের আইন বিষয়ে প্রচুর দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। সেই দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা নিয়ে তিনি দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসীদের আইনী সেবা দিয়ে আসছেন। বিভিন্ন দেশে তাঁর আইনজীবী বন্ধুদের সহায়তায় যে কোনও প্রকার সমস্যায় পড়ছেন প্রবাসীদের তিনি সব ধরণের সহায়তা দিতে প্রস্তুত রয়েছেন।

স্থায়ীভাবে কানাডা, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডে স্থায়ী বসবাসের ব্যপারে অ্যাডভোকেট শেখ সালাহউদ্দিন বলেন, যে সারা বিশ্ব জুড়ে অস্থিতিশীলতা চলছে, কানাডা, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড বিশ্বের শান্তির দেশগুলির প্রতিনিধিত্ব করছে। এই দেশগুলিতে আগের চেয়ে জীবনযাপন, কাজ করা এবং নিরাপদে পড়ালেখা করা অনেক সহজ। যারা কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য এবং নিউজিল্যান্ডে সহজেই বসবাস করতে চান তিনি তাদের আইনি পরামর্শ প্রদান করেন।

মালয়েশিয়া স্থায়ী হতে চাইলে কী করতে হবে?

এই প্রশ্নের জবাবে শেখ সালাহউদ্দিন বলেন যে এসডিএন এবং বিএইচডি এই কোম্পানিগুলোর অধীনে আপনি যদি বিজনেস রেসিডেন্স ভিসা নেন তবে মালয়েশিয়ায় নাগরিকত্ব পাওয়া খুব কঠিন। বিপরীতে, একটি আন্তর্জাতিক কোম্পানির অধীনে ব্যবসায়ের আবাসিক ভিসা পাওয়া পাঁচ বছর পরে মালয়েশিয়ার নাগরিকত্ব (পিআর) পাওয়া আরও সহজ করে তোলে।

এই ক্ষেত্রে বিশাল সুবিধা হল কোনও মালয়েশিয়ান নাগরিকের সুপারিশের প্রয়োজন নেই। এমনকি অন্য কোন প্রতিষ্ঠানের সুপারিশের চিঠিও প্রয়োজন নেই। ব্যবসায় ভিসার মাধ্যমে মালয়েশিয়া থেকে বিশ্বের ৭৩ টি দেশে মাত্র ৩ শতাংশ ট্যাক্স দিয়ে রি-এক্সপোর্ট ব্যবসা করা সম্ভব।

কোন আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের অধীনে বিজনেস রেসিডেন্স ভিসা পাওয়ার জন্য আপনাকে একটি পূর্ণ জীবনবৃত্তান্ত এবং ব্যবসায়ের প্রোফাইল তৈরি করতে হবে। পাসপোর্টের ফটোকপি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট, ব্যাংক স্টেটমেন্ট, ৪ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি (সাদা ব্যাকগ্রউন্ডের) এবং স্থানীয় কমিশনার বা চেয়ারম্যানের চরিত্রের সনদপত্র প্রয়োজন হবে। শেখ সালাউদ্দিন বলেন, সমস্ত কাগজপত্র সঠিক থাকলে ১ থেকে ১.৫ মাসের মধ্যে কাজটি সম্পন্ন হয়ে যায়।

অভিবাসন বিষয়ে শেখ সালাউদ্দিন রাজুর অভিজ্ঞতাঃ

বাংলাদেশের জনসংখ্যার একটি বড় অংশ ইউরোপ, আমেরিকা, আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, মধ্য প্রাচ্য সহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে থাকেন। প্রতিদিন অনেক মানুষ বাংলাদেশ থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাড়ি জমান। জনসংখ্যার একটি বিরাট অংশ বিদেশে গিয়ে বিদেশে অবস্থান করে প্রতিনিয়ত অভিবাসন নিয়ে সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন। শেখ সালাউদ্দিন অভিবাসন সংক্রান্ত এই বিষয়গুলি সফলভাবে দেখাশোনা করেছেন। তিনি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান এবং অভিবাসন আইন বিশেষজ্ঞ হিসেবে তাঁর পারিবারের সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, হাঙ্গেরি এবং মালয়েশিয়ার বিজনেস মাইগ্রেশন এবং অভিবাসনের ব্যপারে দক্ষতা এবং খ্যাতি নিয়ে দীর্ঘদিন কাজ করছেন।

আপনারা যেকোন বিষয়ে জানতে শেখ সালাউদ্দিন রাজুর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

WhatsApp: 01976549944
Email: advsheikhsalahuddin2018@gmail.com

মানবাধিকার কর্মী হিসেবে শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদঃ

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শেখ সালাহউদ্দিন মানবাধিকারকর্মী হিসাবে কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। বর্তমানে তিনি “সাউথ এশিয়ান ল ইয়ার্স ফোরাম” এর সভাপতি এবং “নারী নির্যাতন প্রতিরোধ আন্দোলন” এর সভাপতির পদে রয়েছেন।

লেখক হিসেবে শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদঃ

শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ আইন সম্পর্কিত বিভিন্ন বই বিভিন্ন পত্রিকায় লেখালেখি করেন। তার লেখা “সময়ের ভাবনা” বইটি ২০১৫ প্রকাশ পায় এবং বইটি পাঠকদের মধ্যে ব্যাপক আলোচিত হয়েছে। তার পর থেকে প্রতিবছর বইমেলায় এই বই ধারাবাহিক আকারে প্রকাশিত হয়ে আসছে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *